1. azahar@gmail.com : azhar395 :
  2. admin@gazipursangbad.com : eleas271614 :
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১২:১৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের ওয়াদুদের খুঁটির জোর কোথায়?-গাজীপুর সংবাদ  সিলেটে মুক্তিপণ আদায়কারীদের হাতে যুবক খুনের ঘটনায় ১ জন গ্রেফতার-গাজীপুর সংবাদ  দোয়ারাবাজারে বিজিবি’র অভিযানে ভারতীয় কসমেটিকস, সুপারি ও নাসির বিড়ি জব্ধ-গাজীপুর সংবাদ  গোয়াইনঘাটে টাস্কফোর্সের অভিযানে ১৯ লাখ টাকার ভারতীয় চিনি জব্দ-গাজীপুর সংবাদ  মান্নান ও মানিক সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য নির্বাচিত-গাজীপুর সংবাদ  এবার সিলেটে একটি পিকআপ ভ্যান থেকে ভারতীয় ৭ কার্টুন আতশবাজি উদ্ধার-গাজীপুর সংবাদ  বড়লেখায় বন্যার্তদের মাঝে হাইজিং কীট বক্স বিতরণ-গাজীপুর সংবাদ  ছাতক সদর ইউনিয়নের ৬ শ বন্যার্ত পরিবারের মধ্যে জি আর’র চাল বিতরণ-গাজীপুর সংবাদ  পাট চাষী দের প্রশিক্ষণ কর্মশালা-গাজীপুর সংবাদ  বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন-গাজীপুর সংবাদ 

স্বামীর উপর মিথ্যার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ জানিয়ে স্ত্রী সংবাদ সম্মেলন-গাজীপুর সংবাদ 

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ মে, ২০২৪
  • ২৯ টাইম ভিউ

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় স্ত্রী তার স্বামীর উপর মিথ্যা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। ওই সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার স্বামীর উপর বিভিন্ন মহল থেকে মিথ্যা ষড়যন্ত্র করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। গত ১৫ মে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের ইউটিউব চ্যানেলে আমার স্বামী শিক্ষক মিজানুর রহমান এর বিরুদ্ধে আপত্তিকর একটি সংবাদ প্রচার করে। যা ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেইসবুকে) ভাইরাল হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার কাপাসিয়া প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই মিথ্যা সংবাদ প্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সেই সাথে সত্য উন্মোচন করার লক্ষে উপস্থিত সাংবাদিকদের আহ্বান জানান।

মিজান মাস্টারের স্ত্রী রাশিদা খাতুন তিনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা। তাঁর স্বামী মোঃ মিজানুর রহমান তিনিও শিক্ষক। গাজীপুর জেলা কাপাসিয়া উপজেলা সদরের জুনিয়া গ্রামে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। সংবাদ সম্মেলনে রাশিদা খাতুন লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন,
এই মিথ্যা, বানোয়াট সংবাদ প্রচারে আমার, আমার স্বামীর ও পরিবারের মান সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। আমার স্বামী মোঃ মিজানুর রহমান একজন আদর্শবান ও নীতিবান শিক্ষক। তিনি নীতি ও নৈতিকতার সাথে ২০ (বিশ) বছর ধরে সুনামের সহিত কাপাসিয়ায় শিক্ষকতা করে আসছেন। তাঁর সুনাম নষ্ট করতে কিছু মহল বিভিন্ন ভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে। শিক্ষক মিজানুর রহমান ২০১৪ সালে নিজের উপার্জনের অর্থ দিয়ে বিনা খরচে প্রতিবন্ধীদের লেখাপড়া করার জন্য ‘ফুলকুঁড়ি প্রতিবন্ধী’ নামে একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। অসহায় দরিদ্র শিক্ষার্থীদের নার্সিং ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ সুবিধার জন্য প্রতিষ্ঠা করেন বিশ্ববিদ্যালয় ও নার্সিং ভর্তি কোচিং সেন্টার। তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ক্যামব্রিজ ল্যাবরেটরীজ স্কুল এবং ইংরেজি বিষয়ে শিক্ষার্থীদের পারদর্শীতামূলক শিক্ষা অর্জনের জন্য প্রতিষ্ঠা করেন মিজান’স ইংলিশ কেয়ার ও ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ক্লাব সহ আরও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। যে প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কাপাসিয়ার শত শত প্রতিবন্ধী পেয়েছে শিক্ষা ও চিকিৎসা। পাশাপাশি পেয়েছে হুইলচেয়ার এবং বিভিন্ন উপকরণ। এমন একটি মানুষের মান সম্মান নষ্ট করতে একটি মহল দীর্ঘদিন ধরে পিছনে লেগে আছে।

গত ২০২৩ সালের এপ্রিল মাসের রমজান মাসের তুচ্ছ একটি ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা নূরজাহান (কাপাসিয়ার দরদরিয়া গ্রাম) আমলজাহান নোহাকে আমার স্বামীর গাজীপুরস্থ্য কোচিং সেন্টারে গিয়ে ভর্তি করেন। কয়েকদিন ক্লাস করার পর ওনার মেয়েকে একা পড়ানোর জন্য চাপ দেয়। আমার স্বামী রাজি না হওয়ায় ওই ছাত্রী মা অকথ্য গালাগাল করে এবং হুমকি দেয়। আমার স্বামী বলেন, আপনি আপনার মেয়েকে অন্য কোন শিক্ষকের কাছে পড়ান, আমার কাছে আপনার মেয়েকে পড়ানোর দরকার নাই। তখন ওই ছাত্রীর মা রাগান্বিত হয়ে বলেন, গাজীপুরে পড়াতে হলে আমার মেয়েকে আলাদাই পড়াতে হবে। এসব কথা আমার স্বামী আমার কাছে বলে। তারপর আমি আমার স্বামীকে গাজীপুরের কোচিং সেন্টারটি বন্ধ করার জন্য বলি এবং বন্ধ করে দেয়া হয়। দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় পর গত ৮ মে, ২০২৪ ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দিন আমাদের বাড়ির পাশে একজন সাংবাদিক এসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও আমাদের বাড়ি-ঘর কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়া ভিডিও করতে থাকে। এক পর্যায়ে ওই সাংবাদিক আমার শ্বশুড়কে নানা ধরনের অশ্লিল কথা জিজ্ঞেস করতে থাকে। এ সময় আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই সাংবাদিকের আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে ওই সাংবাদিক ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। ওই সময় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সাংবাদিকের ক্যামেরার সামনে যেসব প্রতিবাদ করেছে তা প্রকাশ না করে সাংবাদিকের মনগড়া বক্তব্য দিয়ে একতরফা মিথ্যা বানোয়াট সংবাদ প্রচার করে। যা আমার স্বামীর চরিত্র হনন হয়েছে। আমার স্বামী শিক্ষক মিজানুর রহমান সারাদিন নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত ছিলেন। ওই সাংবাদিকের সাথে আমার স্বামী শিক্ষক মিজানুর রহমানের কোনো ধরনের সাক্ষাত বা ফোনে কথাও হয়নি। আর এভাবে এক পক্ষের কথা শুনে ভিডিও সংবাদ প্রচার করা হয়েছে।
এই একপেশে সংবাদ প্রচার করার তীব্র প্রতিবাদ জানাই এবং এর বিরুদ্ধে যা যা করণীয় আমি আপনাদের নিকট দাবি জানাই।
উল্লেখ্য যে, এ ঘটনার পরেরদিন অর্থাৎ ৯ মে ২০২৪ আমার স্বামী মিজান মাস্টারের ব্যাবহৃত মোবাইলে একটি কল আসে। অপর প্রান্ত থেকে কেউ একজন ফোনে মিজান মাস্টারকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ বিষয়ে কাপাসিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। এতে আমাদের সন্দেহ হচ্ছে দুটি ঘটনা উৎপ্রোতভাবে জড়িত। আমি আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদ জানাই। এবং আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি আপনাদের লিখনের মাধ্যমে সত্য ঘটনাকে সকলের সামনে প্রকাশ করতে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মিজানুর রহমানের বড় মোঃ আমিনুল রহমান, বড় বোন মাসুদা আক্তার ও স্বপ্ন বেগম, ছোট ভাই মোঃ আতাউর রহমানসহ কাপাসিয়ায় কর্মরত ইলেকট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2024
Developer By Zorex Zira

Design & Developed BY: ServerSold.com

https://writingbachelorthesis.com